মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০২:০৪ অপরাহ্ন

টিকটক-পাবজি-লাইকি বন্ধে আইনি নোটিশ

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় শনিবার, ১৯ জুন, ২০২১
  • ৪১

বাংলাদেশের সব অনলাইন প্ল্যাটফর্মে টিকটক, বিগো লাইভ, পাবজি, লাইকি, ফ্রি ফায়ারের মতো গেম ও অ্যাপ অবিলম্বে বন্ধ করার জন্য সরকারকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

আজ শনিবার সুপ্রিম কোর্টের দুই আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির পল্লব এবং ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাউছার মানবাধিকার সংগঠন ল অ্যান্ড লাইফ ফাউন্ডেশনের পক্ষে এ নোটিশ পাঠান।

আরও পড়ুন: অর্থপাচারকারীদের শনাক্ত করে ব্যবস্থা নিতে হবে

এসব গেম এবং অ্যাপের ক্ষতিকারক দিক তুলে ধরে ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব, বিটিআরসির চেয়ারম্যান, শিক্ষাসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব, আইনসচিব, স্বাস্থ্যসচিব ও পুলিশের আইজির কাছে ইমেইলে জনস্বার্থে এই নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নোটিশ গ্রহিতাদের এ বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে। নাহলে হাইকোর্টে রিট দায়ের করে যথাযথ আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: স্বর্ণের দাম কমেছে

নোটিশে উল্লেখ করা হয়, পাবজি, ফ্রি ফায়ারের মতো গেমে দেশের যুবসমাজ, শিশু-কিশোররা ব্যাপকভাবে আসক্ত হয়ে পড়েছে। যার ফলে সামাজিক মূল্যবোধ, শিক্ষা, সংস্কৃতি বিনষ্ট হচ্ছে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্ম হয়ে পড়ছে মেধাহীন। এসব গেমস যেন যুবসমাজকে সহিংসতা প্রশিক্ষণের এক কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠছে।

অন্যদিকে টিকটক, লাইকির মতো অ্যাপ ব্যবহার করে দেশের শিশু-কিশোর, যুবসমাজ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হচ্ছে। অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে এবং সারা দেশে কিশোর গ্যাং কালচার তৈরি হচ্ছে। টিকটক অনুসারীরা বিভিন্ন গোপনীয় জায়গায় পুল পার্টির নামে অনৈতিক যৌন বিনোদনে লিপ্ত হচ্ছে।

শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংসের আগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে: ন্যাপ

এ ছাড়া সম্প্রতি নারীপাচারের ঘটনা এবং বাংলাদেশ থেকে দেশের বাইরে অর্থপাচারের ঘটনায়ও টিকটক, লাইকি, বিগো লাইভের মাধ্যমে চলছে। এটা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক এবং দেশের জনস্বার্থের পরিপন্থি, শৃঙ্খলা পরিপন্থি ও মূল্যবোধের পরিপন্থি।

অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং তাৎপর্যপূর্ণ বিধায় এই বিষয়টি মনিটর করার জন্য এবং সময়ে সময়ে শিশুদের জন্য উপযোগী এবং যথাযথ অনলাইন গেমস সুপারিশ করার জন্য একটি মনিটরিং টিম গঠন করা অত্যন্ত জরুরি।

আরও পড়ুন: কিশোরগঞ্জে মস‌জি‌দের দানবাক্সে মিলল ১২ বস্তা টাকা

আইনি নোটিশে এ বিষয়গুলো উল্লেখ করে বিবাদীদের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে ক্ষতিকর অ্যাপস অবিলম্বে অপসারণ এবং লিংক বন্ধ করার অনুরোধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করার জন্য মনিটরিং, ইভাল্যুয়েশন ও সুপারিশ কমিটি গঠন করার অনুরোধ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইন এবং তথ্যপ্রযুক্তি আইনের বিধান অনুযায়ী এইসব অবাঞ্ছিত ক্ষতিকর গেমস এবং অ্যাপগুলিকে অনলাইন প্লাটফর্ম থেকে সরিয়ে বাংলাদেশের নাগরিকদের জন্য একটি স্বাস্থ্যকর এবং উপযোগী সাইবার পদ্ধতি সুনিশ্চিত করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে বিবাদীদের যেটা করতে উনারা ব্যর্থই হয়েছেন।

আরও পড়ুন:
গ্রেফতার হচ্ছে না দেহব্যবসায়ী পরীমনি, সিন্ডিকেটে কারা?
https://web.facebook.com/profile.php?id=100050527901576

শেয়ার করুন

আরো খবর