সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:৪৬ পূর্বাহ্ন

দক্ষিণ কোরিয়ায় কুকুরের মাংস নিষিদ্ধের প্রস্তাব

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৩
দক্ষিণ কোরিয়ায় কুকুরের মাংস নিষিদ্ধের প্রস্তাব
দক্ষিণ কোরিয়ায় কুকুরের মাংস নিষিদ্ধের বিষয়ে পার্লামেন্টে আলোচনা হবে। ছবি : সংগৃহীত

কুকুরের মাংস খাওয়া বন্ধে সম্ভাব্য আইন প্রণয়নের বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার পার্লামেন্টে দীর্ঘ আলোচনা হবে আজ বৃহস্পতিবার। দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের এমন পদক্ষেপে খুশি পশু অধিকার কর্মীরা। তবে, পাল্টা যুক্তি দিয়ে আপত্তি জানিয়েছে ঐতিহ্যবাদীরা। সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলে এ খবর জানিয়েছে।

গত সেপ্টেম্বরে কুকুরের মাংস খাওয়া বন্ধের আইন প্রণয়নের আগ্রহ প্রকাশ করেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন। পশুপ্রেমী প্রেসিডেন্টের প্রস্তাবকে সমর্থন জানিয়েছেন পশু অধিকার কর্মীরা। সমাজের বিভিন্ন অংশ থেকে সমর্থনের আভাস পেয়েছেন মুন।

আশাবাদী পশুপ্রেমীরা

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন নতুন আইনের পক্ষে যুক্তি দেখাতে গিয়ে বলেছিলেন, কুকুরের মাংস খাওয়া আন্তর্জাতিক পরিসরে বেশ বিতর্কিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তা ছাড়া দক্ষিণ কোরিয়ায় অনেকেই আগের মতো আর কুকুরের মাংস খেতে চান না। তাই, এখনই তা বন্ধ করা উচিত। পশুপ্রেমী এবং দক্ষিণ কোরিয়ার তরুণ প্রজন্মের একাংশ মনে করে, সরকার চাইলে এখন দেশে কুকুরের মাংস বিক্রি ও খাওয়া বন্ধ করা সম্ভব।

জনপ্রিয়তা কমছে কুকুরের মাংসের

১৯৮৮ সালের সিউল অলিম্পিকের সময় সেখানকার সব রেস্তোরাঁয় কুকুরের মাংস বিক্রি বন্ধ রেখেছিল দক্ষিণ কোরীয় সরকার। দক্ষিণ কোরিয়ার সংস্কৃতির বিষয়ে বিদেশি ক্রীড়াবিদ ও অতিথিদের মনে ভুল ধারণা জন্ম নিতে পারে—এমন আশঙ্কা থেকে রেস্তোরাঁয় কুকুরের মাংস বিক্রি বন্ধ রাখায় অলিম্পিকের আসর চলার সময়টায় কুকুরের মাংস খাওয়ার সুযোগ সিউলের কেউ পায়নি। তখন থেকেই দক্ষিণ কোরিয়ায় কুকুরের মাংসের জনপ্রিয়তা কমছে। দেশটিতে কুকুরের মাংস বিক্রি হয় এমন রেস্তোরাঁর সংখ্যাও কমছে দ্রুত। ২০১৯ সালে রাজধানী সিউলে এমন রেস্তোরাঁ ছিল একশটিরও কম।

আরও পড়ুন: ক্যাটরিনা-ভিকির বিয়েতে ছবি তোলা নিষেধ!

শেয়ার করুন

আরো খবর