সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৯:১৩ অপরাহ্ন

দিনাজপুর থেকে ধানকাটা শ্রমিক সেজে ঢাকায় আসছেন পোশাক শ্রমিক

ক্রাইম এক্সপ্রেস ডেস্ক :
  • আপডেট সময় সোমবার, ১১ মে, ২০২০
  • ৯০

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দিনাজপুর জেলাকে লকডাউন ঘোষণা দেওয়া হয়। এরপরও ধানকাটা শ্রমিক সেজে রাতের আধারে দিনাজপুর থেকে ঢাকা আসছেন পোশাক শ্রমিকরা।

রোববার (১০ মে) রাত ১১টায় হিলি রাজধানী মোড় চেকপোস্ট থেকে ৩৫ জন পোশাক শ্রমিককে আটক করে হিলির আনসার ভিডিপির সদস্যরা। জব্দ করা হয় মিনি বাস।

বাসের শ্রমিকরা বলেন, ‘চাকরি বাঁচাতে নিরূপায় হয়ে  ঢাকা যেতে হচ্ছে। অনেকেই এভাবে ঢাকা গেছে। আমরাই যেতে পারলাম না। বেঁচে থাকলে তো খেতে হবে। আর চাকরি না করলে খাবো কী?’

ভিডিপি সদস্য মহাববত হোসেন রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘রাত ১১টায় দিনাজপুরের আমবাড়ি থেকে আসা ঢাকার একটি মিনি বাসকে (ঢাকা মেট্রো-ব ১৫-১৩৪০) তল্লাশির জন্য দাঁড় করানো হয়। গাড়িটির সামনে সাদা কাগজে ধানকাটা শ্রমিক লেখা আছে। সন্দেহ হলে যাত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বুঝতে পারি, তারা ধানকাটা শ্রমিক নই। তারা ঢাকার বিভিন্ন পোশাক কারখানায় কাজ করেন। পরে গাড়িসহ তাদের আটক করে হাকিমপুর (হিলি) উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করি।’

হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল রাফিউল আলম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আনসার ভিডিপি সদস্যারা খবর দিলে ঘটনাস্থলে যাই। যেহেতু লকডাউনের কারণে দেশে গণপরিবহন চলাচল নিষিদ্ধ করেছে সরকার। সরকারি নির্দেশ অমান্য করায় তাদের আটক করা হয়। পরে অবশ্য তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। যাত্রীবাহী বাসটি আমবাড়ি থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। তাই বাসটিও জব্দ করা হয়েছে।’

হাকিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক আকন্দ রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ফোনে ইউএনও মহোদয় বিষয়টি জানালে পুলিশের একটি মোবাইল টিম রাজধানী মোড়ে যায়। বাস থেকে যাত্রীদের নামিয়ে বাসটি জব্দ করি। বাসের সুপার ভাইজারের কাছ থেকে যাত্রীদের ভাড়ার টাকা নিয়ে তাদে ফিরিয়ে দেওয়া হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাসের চালক সরকারি নির্দেশ অমান্য করেছে। বাসটির কোনো রোড পারমিট বা চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স ছিল না।’

বাসের একজন নারী যাত্রী বলেন, ‘অফিস থেকে বার বার আমাদের ঢাকায় পৌঁছানোর জন্য ফোনে বলা হচ্ছে। চাকরি বাঁচাতে নিরুপায় হয়ে আমাদের মিথ্যা বলতে হয়েছে। তিন দিন সময় দিয়েছে, এর মধ্যে উপস্থিত না হলে আমাদের চাকরিচ্যুত করা হবে।’

শেয়ার করুন

আরো খবর