মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০৩:০৯ অপরাহ্ন

রাজধানীতে বায়ুদূষণরোধে বাপার ১৫ সুপারিশ

স্টাফ রিপোর্টার
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৯২
রাজধানীতে বায়ুদূষণরোধে বাপার ১৫ সুপারিশ

রাজধানীতে ক্রমান্বয়ে বেড়েই চলেছে বায়ুদূষণ। ঢাকায় বায়ুদূষণরোধে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি ১৫টি সুপারিশ তুলে ধরেছে।

আজ বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে ‘বিপজ্জনক মাত্রায় ঢাকার বায়ুদূষণ জনস্বাস্থ্য ও দুর্যোগ মোকাবিলায় করণীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এ সুপারিশ তথ্য তুলে ধরা হয়।

স্ট্যামফোর্ড বায়ুমণ্ডলীয় দূষণ অধ্যয়ন কেন্দ্রের (ক্যাপস) গবেষণায় ২০১৬ থেকে ২০২১ সালের বায়ুমান সূচকের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গত ছয় বছরের মধ্যে ঢাকার মানুষ মাত্র ২ শতাংশ (৩৮ দিন) সময় ভালো বায়ু গ্রহণ করে।

আর ২৬ শতাংশ (৫১০ দিন) চলনসই মানের বায়ু, ২৯ শতাংশ (৫৭৭ দিন) সংবেদনশীল বায়ু, ২২ শতাংশ (৪৪৩ দিন) অস্বাস্থ্যকর, ১৯ শতাংশ (৩৮৫ দিন) খুব অস্বাস্থ্যকর এবং ২ শতাংশ (৩৭ দিন) সময় দুর্যোগপূর্ণ বায়ু গ্রহণ করে।

ঢাকা শহরের ১০টি স্থানে চালানো গবেষণার তথ্য-উপাত্ত থেকে দেখা যায়, প্রতিটি স্থানের গড় বস্তুকণা নির্ধারিত মানমাত্রার (২ দশমিক ৫) কয়েক গুণ বেশি ছিল। গবেষণা অনুযায়ী, আহসান মঞ্জিল, আবদুল্লাহপুর, মতিঝিল, ধানমন্ডি-৩২, সংসদ ভবন, আগারগাঁও, মিরপুর-১০ এবং গুলশান-২ এই এলাকাগুলোতে গড় বস্তুকণা প্রতি ঘনমিটারে যথাক্রমে ৫৭, ৬২, ৬০, ৬৩, ৫৯, ৬১, ৬৬ এবং ৬৫ মাইক্রোগ্রাম ছিল।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ক্যাপসার পরিচালক অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জমান মজুমদার। তিনি বলেন, গবেষণায় তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ২০২২ সালের জানুয়ারিতে ঢাকার মানুষের এক দিনের জন্যও ভালো বায়ু সেবন করার সৌভাগ্য হয়নি।

আরও পড়ুন : ইসি আইনে কাউকে ইনডেমনিটি দেওয়া হয়নি : আইনমন্ত্রী

শেয়ার করুন

আরো খবর