মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০২:১৩ অপরাহ্ন

বিয়ের চার মাসেই সব শেষ মেঘলার

বরিশাল প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৯৫
বিয়ের চার মাসেই সব শেষ মেঘলার

বরিশালের আগৈলঝাড়ার ভেগাই হালদার পাবলিক একাডেমির দশম শ্রেণির ছাত্রী মেঘলা আক্তার ইতি আত্মহত্যা করেছেন বলে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন প্রচার করলেও তা মানতে নারাজ মেঘলার ভাই।

মেঘলার ভাই নয়ন সরদারের দাবি, যৌতুক না পেয়ে হত্যা করা হয়েছে তার বোনকে। এই অভিযোগে মামলাও দায়ের করেছেন তিনি। মামলার অভিযোগ আমলে নিয়ে আদালত শুনানির জন্য রেখেছেন।

মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, ফুল্লশ্রী গ্রামের মৃত রুহুল আমিন সরদারের মেয়ে মেঘলা আক্তার ইতির সাথে চার মাস আগে যবসেন গ্রামের জাহাঙ্গীর পাইকের ছেলে সরকারী শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত ডিগ্রী কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র শিহাব হোসেন পাইকের বিয়ে হয়।

বিয়ের পরে মেঘলার শ্বশুর জাহাঙ্গীর হোসেন পাইক ও শাশুরি ময়না বেগম ছেলে শিহাবকে বিদেশ পাঠাতে মেঘলাকে পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক এনে দিতে চাপ দেন। এ নিয়ে নানাভাবে নির্যাতন শুরু করেন। মেঘলা নির্যাতনের কথা বাবার পরিবারকে ফোনে জানাতো। তারই ধারাবাহিকতায় গত শনিবার রাতে মেঘলাকে মারধর করে শিহাব ও তার মা-বাবা মেঘলার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করে।

অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, শিহাবের পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় থানা পুলিশের ওপর প্রভাব বিস্তার করে পুলিশের এজাহারে মেঘলা আত্মহত্যা করেছে মর্মে মামলা নেওয়া হয়েছে। সেখানে প্ররোচনায় অভিযুক্ত করা হয়েছে স্বামী শিহাবকে।

আরও পড়ুন : স্রষ্টাকে নিয়ে শ্বেতার আপত্তিকর মন্তব্যে তুমুল বিতর্ক

শেয়ার করুন

আরো খবর